পাবনায় কন্যাশিশু বিক্রির চেষ্টাকালে আটক ৪

পাবনায় কন্যাশিশু বিক্রির চেষ্টাকালে আটক ৪

অনলাইন ডেস্ক:পাবনা সদর উপজেলার হেমায়েতপুরে ২২ দিন বয়সী এক কন্যাশিশুকে বিক্রির চেষ্টাকালে চারজনকে হাতেনাতে আটক করে পুলিশে দিয়েছেন এলাকাবাসী।

বুধবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ওই শিশুকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। আটক চারজন হলো- হেলাল মণ্ডল, স্ত্রী আন্নি খাতুন, শ্বশুর আব্দুল্লাহ ও শাশুড়ি রুবি খাতুন।

পুলিশ জানায়, হেমায়েতপুর ইউনিয়নের কিসমত প্রতাপপুর গ্রামের হেলাল মণ্ডল নামে এক ব্যক্তি ঢাকায় রাজমিস্ত্রির কাজ করে। গত শনিবার সে ঢাকা থেকে একটি কন্যাশিশুসহ তার স্ত্রী আন্নিকে নিয়ে কিসমত প্রতাপপুরে শ্বশুরবাড়ি আসে। এর পর থেকে শিশুটিকে তারা বিভিন্ন জনের কাছে বিক্রির চেষ্টা করছিল। বুধবার বিকেলে প্রতিবেশী এক নিঃসন্তান দম্পতির কাছে ২০ হাজার টাকার বিনিময়ে শিশুটিকে বিক্রির চেষ্টাকালে স্থানীয়রা তাকে আটক করে থানায় খবর দেন। হেমায়েতপুর ফাঁড়ি থেকে পুলিশের একটি দল গিয়ে বাচ্চাসহ চারজনকে আটক করে।

হেমায়েতপুর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক হাবিবুর রহমান সমকালকে জানান, জিজ্ঞাসাবাদে হেলাল জানিয়েছে, ঢাকার উত্তরার শফিকুল ইসলাম নামে এক দরিদ্র ব্যক্তির সন্তান এই শিশু। শহরের বিসিক ১নং গেট এলাকায় তাদের এক নিঃসন্তান আত্মীয়ের জন্য তিন দিন আগে তারা শফিকুলের কাছ থেকে পোষ্য হিসেবে প্রতিপালনের জন্য শিশুটিকে নিয়ে আসে। পাবনায় আনার পর হেলালের সেই আত্মীয় শিশুটিকে গ্রহণে অস্বীকৃতি জানালে শিশুটিকে অন্য কোনো নিঃসন্তান দম্পতির কাছে দেওয়ার চেষ্টা করছিল।

পাবনা সদর থানার ওসি ওবাইদুল হক সমকালকে জানান, পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে হেলাল স্বীকার করেছে, সে শিশুটিকে নিজের পরিবারে প্রতিপালনের কথা বলে অন্যত্র বিক্রির চেষ্টা করছিল। হেলালের বক্তব্যের সত্যতা জানতে পাবনা থেকে পুলিশের একটি দল শিশুটির বাবা শফিকুলের খোঁজে ঢাকায় রওনা হয়েছে। তদন্ত শেষে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সে পর্যন্ত শিশুটি পুলিশের হেফাজতে থাকবে।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazartvsite-01713478536