আখাউড়ায় নাজু হত্যার মূল আসামীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবীতে মানববন্ধন

আখাউড়ায় নাজু হত্যার মূল আসামীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবীতে মানববন্ধন

রিয়াদ আহমেদ আখাউড়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় নাজু মিয়া হত্যার মূল আসামীদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন হয়েছে। শনিবার সকালে উপজেলার মনিয়ন্দ ইউনিয়নের শেখ মার্কেট এলাকায় মনিয়ন্দ এলাকাবাসীর উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধনে নিহত নাজুর মা-বাবা, স্ত্রী, সন্তানসহ এলাকার শতাধিক লোকজন অংশ নেয়। মানববন্ধন শেষে হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন নিহত নাজু মিয়ার পিতা আবুল হোসেন, মাতা আমেনা বেগম, স্ত্রী রাবেয়া বেগম ও তিন মেয়ে নিপা আক্তার, লিজা আক্তার, লিমা আক্তার ও ছেলে মানিক মিয়া। নিহত নাজুর পিতা আবুল হোসেন বলেন, পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে বিরোধের জেরে গত বছরের ২২ জুলাই নোয়ামোড়া গ্রামের সহিদ মিয়ার ছেলে আনোয়ার মিয়া ও হরিপুর গ্রামের মালেক মিয়ার ছেলে খোকন মিয়া আমার ছেলেকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। ২৪ জুলাই মনিয়ন্দ ইউনিয়নের ভারত সীমান্তবর্তী মিনারকুট এলাকা থেতে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত রাসেল নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। কিন্তু ঘটনার ৮ মাস অতিবাহিত হলেও এখনও মূল আসামী গ্রেফতার হয়নি। আমরা অবিলম্বে হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবী জানাই। এলাকাবাসী ও পিবিআই সূত্রে জানা যায়, নাজু হত্যাকান্ডের ঘটনায় তার পিতা আবুল হোসেন বাদী হয়ে আনোয়ার হোসেন ও খোকন মিয়াকে আসামী করে ২০২০ সনের ৬ আগষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্তের আদেশ দেন। পিবিআইয়ের সাব ইন্সপেক্টর মিজানুর রহমান মামলাটি তদন্ত করে এ ঘটনায় জড়িত রাসেল নামে একজনকে আটক করে। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ হাসানের আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্ধি প্রদান করেছে রাসেল। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআইয়ের সাব ইন্সপেক্টর মিজানুর রহমান জানান, জিজ্ঞাসাবাদে রাসেল মিয়া নাজু হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্যদেরকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশ সুপার (পিবিআই) মো: সাখাওয়াত হোসেন বলেন, ভিকটিমের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করেছি। এ ঘটনায় রাসেল নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। সে আদালতে স্বীকীরোক্তি মূলক জবানবন্ধি দিয়েছে। আশা করছি পলাতক আসামীদেরকে দ্রুত গ্রেফতার করে মামলাটি শেষ করতে পারবো।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazartvsite-01713478536