ব্রাহ্মণবাড়িয়া আখাউড়া রেলওয়ে স্টেশনে র‍্যাবের অভিযানে ৪ টিকেট কালোবাজারি গ্রেফতার।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া আখাউড়া রেলওয়ে স্টেশনে র‍্যাবের অভিযানে ৪ টিকেট কালোবাজারি গ্রেফতার।

মোঃ আল আমিন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধিঃ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া রেলওয়ে থানাধীন আখাউড়া রেল স্টেশন থেকে ১১১ টি ট্রেনের টিকেট ও টিকেট বিক্রয়ের নগদ ৮,৫০০/- টাকা’সহ ৪ জন টিকেট কালোবাজারিকে আটক করেছে র‌্যাব-১৪, সিপিসি-৩, ভৈরব ক্যাম্প।বৃহস্পতিবার সন্ধা সাড়ে ৭ টার সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করা হয়েছে।আটককৃতরা হলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার দুবলা গ্রামের মৃত মহরম আলীর ছেলে মোঃমিলন মিয়া,কুমিল্লা জেলার কোতয়ালি থানার ধর্মপুর গ্রামের মৃত সাধু মিয়ার ছেলে মোঃ মজিবুর রহমান,ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার শ্যামনগর গ্রামের আবুল খায়ের খলিফার ছেলে মোঃস্বপন খলিফা ও আখাউড়া থানার রুপনগর গ্রামের বায়েক মিয়ার ছেলে মোঃপারভেজ মিয়া। র্যাব-১৪, ভৈরব ক্যাম্পের কোম্পানী অধিনায়ক,সিনিয়র সহকারী পরিচালক ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকউদ্দিন মোহাম্মদ যোবায়েরের দেয়া প্রেস রিলিজ থেকে জানা যায়, র্যাব-১৪,সিপিসি-৩ ভৈরব ক্যাম্প গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, চট্টগ্রাম রেলওয়ে জেলার আখাউড়া রেলওয়ে থানাধীন আখাউড়া রেল স্টেশন এলাকার একটি অসাধু চক্র ট্রেনের টিকেট কালোবাজারী করে বিক্রয় করে আসছে দীর্ঘদিন যাবত। উক্ত তথ্যের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য ট্রেনের টিকিট কালোবাজারি চক্রের উপর র্যাবের নিরবিচ্ছিন্ন গোয়েন্দা নজরদারি চালানো হয় এবং তথ্যের সত্যতা পাওয়া যায়।উক্ত সংবাদ প্রাপ্ত হয়ে ভৈরব ক্যাম্পের কমান্ডার এএসপি মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেনের নেতৃত্বে ভৈরব র্যাব ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল অভিযানটি পরিচালনা করে তাদেরকে গ্রেফতার করে।তাদের দেহ তল্লাশি করে বিভিন্ন ট্রেনের ১১১ টি ট্রেনের টিকেট উদ্ধার পূর্বক জব্দ করা হয়। জব্দকৃত আলামতের আনুমানিক মূল্য ২৩ হাজার পাঁচশত টাকা। ধৃত আসামীদের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম রেলওয়ে জেলার আখাউড়া রেলওয়ে থানায় মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান তিনি। এ দিকে টিকেট কালোবাজারিদের ধরায় র্যাবের কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানিয়েছে আখাউড়ার সর্বস্থরের জনগন।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ও প্রশংসায় ভাসছেন র্যাবের সদস্যরা। রেলওয়ে পুলিশের চোখের সামনেই টিকেট কালোবাজারি চক্রটি বুক ফুলিয়ে রমরমা ব্যবসা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেন যাত্রীরা।যাত্রীরা বলেন,রেলওয়ে প্রশাসন ও টিকেট মাস্টারের সহযোগিতায় যাত্রীদের জিম্মি করে ৩/৪ গুণ বেশি দামে টিকেট বিক্রি করে তারা।ডিবি পুলিশ ও র্যাব হলো স্টেশনে টিকেট কালোবাজারি নিরসনের সর্বশেষ আশার আলো।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazartvsite-01713478536