কিশোরগঞ্জে থানা হাজতে গরু চোরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

কিশোরগঞ্জে থানা হাজতে গরু চোরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মোরছালীন, কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) প্রতিনিধি ঃ নীলফামারী কিশোরগঞ্জে থানা হাজতে আব্দুল্লাহ আল মামুন (১৮) নামে এক গরু চুরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আব্দুল্লাহ আল মামুন কিশোরগঞ্জ সদর ইউনিয়নের যাদুমনি গ্রামের মৃত হুজুর আলীর ছেলে । স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শনিবার দুপুরে আব্দুল্লাহ আল মামুন একটি চুরি করা গরু নিয়ে যাওয়ার সময় কেশবা তেলিপাড়া গ্রামের লোকজন তাকে আটকের পর পুলিশে সোপর্দ করে । থানা হাজতে বিকাল সারে ৪ টার দিকে তার মৃত্যুর সংবাদ ছরিয়ে পরলে শত শত বিক্ষুব্ধ জনতা থানার সামনে বিক্ষোপ করে । এক পর্যায়ে বিক্ষুব্ধ জনতা থানার ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে জানালার গøাসে ক্ষতি সাধন করে। কিশোরগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এম হারুন অর রশিদ সাংবাদিকদের জানান , আব্দুল্লাহ আল মামুন আত্মহত্মা করেছে। এঘটানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। মামলা নং-৯,তারিখ-১০/০৮/১৯।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা প্রতিনিধি ঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে বুধবার দিবাগত ভোর রাতে পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে ১৮ মামলার পলাতক আসামী চিনু মিয়া বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছে।পুলিশ জানিয়েছে, ৭ আগষ্ট মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের বিশ্বনাথপুর গ্রামে হত্যা চেষ্টা, নাশকতা, প্রচারণা ও অস্ত্র আইনের মামলা সহ ১৮টি মামলার পলাতক আসামী চিনু মিয়াকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আটক করা হয়। খবর পেয়ে চিনু মিয়ার সহযোগীরা পুলিশের উপর হামলা করে হাতকড়া পড়া অবস্থায় আসামী চিনু মিয়া কে ছিনিয়ে নেয়। ২৪ ঘন্টা অভিযানে আজ (৯ আগষ্ট) ভোরে পলাতক আসামী কে গ্রেফতার করতে গেলে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ করে গুলি চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে দুইপক্ষে মধ্যে বন্দুক যুদ্ধ শুরু হয়। এরপর সন্ত্রাসীরা পালিয়ে গেলে চিনু মিয়া পুলিশের গুলিতে চিনু মিয়া গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মারা যায়। পুলিশ সেখান থেকে একটি পিস্তলসহ দেশীয় অস্ত্র এবং চিনু মিয়ার লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় ৩ পুলিশ সদস্যও আহত হয়।

পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে ১৮ মামলার পলাতক আসামী চিনু মিয়া বন্দুক যুদ্ধে নিহত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

রিবেশকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করতে ডেঙ্গু প্রতিরোধ বিষয়ক সচেতনতা মূলক আলোচনা সভা ও বৃক্ষরোপণ কর্মসূচীর আয়োজন করেছে বৈলতলী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ

২৪শে আগস্ট শনিবার সকাল ১১টায় জাফরাবাদ উচ্চ বিদ্যালয় বৈলতলী বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় ও জাফরাবাদ ফাজিল ডিগ্রি মাদ্রাসায় ডেঙ্গু প্রতিরোধ বিষয়ক আলোচনা সভা, লিফলেট বিতরন ও বৃক্ষ বিতরন করা হয়। ৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রায় পাচঁশত চারাগাছ বিতরণ করা হয়।

এতে উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি খোরশেদুল আলম ইমতিয়াজ

বৈলতলী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আজিজুল হক চৌধুরী রিকনের সভাপত্ত্বিতে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক জাহিদুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বৈলতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট আনোয়ারুল মোস্তফা দুলাল।       

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বৈলতলী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক দেবু দাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান সানি, দপ্তর সম্পাদক নোমান উদ্দীন রুবেল। এছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা ওহিদুল ইসলাম বিপুল তালুকদার, মোঃ তৌহিদ, রোকন উদ্দীন, সাফায়াত হোসেন সবুজ, মোঃ জালাল, জয়া প্রমুখ।

বৈলতলী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের উদ্যোগে ডেঙ্গু প্রতিরোধ সচেতনতা মূলক আলোচনা সভা ও বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত।

অারিফুজ্জামান অারিফ, বিশেষ প্রতিনিধি 
বাহ্মণবাড়িয়া:
গ্রীন ব্রাহ্মণবাড়িয়া’র আয়োজনে সরাইল সরকারি কলেজ প্রাঙ্গনে বিনামূল্যে গাছ বিতরণ অনুষ্ঠান এবং মোটিভেশনাল প্রোগ্রাম সফল ভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ঢাকা মহানগর শিক্ষা কমিটির সদস্য আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা রুম টু রিড এর আফজালুর রহমান রিপন এর বক্তব্য ও প্রাঞ্জল উপস্থাপনা অনুষ্ঠানে ভিন্ন মাত্রা যোগ করে।
প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সরাইল সরকারি কলেজের প্রিন্সিপাল শিক্ষাবিদ মৃধা আহমাদুল কামাল।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পিস ভিশন বাংলাদেণ এর সভাপতি, সরাইলের কৃতি সন্তান এড. শেখ জাহাঙ্গীর, সাধারন সম্পাদক,বিশিষ্ট সংগঠক, তিতাস বার্তার উপদেষ্টা শরীফ আহমেদ খান, সরাইল সরকারি কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক শহিদুল ইসলাম মামুন।
স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা শরিফ সিদ্দিক, বিশিষ্ট সংগঠক, এডমিন প্রাউড ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পরিচালক কোহিনুর আক্তার।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি মহিলা কলেজের মেধাবী ছাত্রী ও সংগঠক তাছলিমা নাছরিন, লস্কর পাপিয়া জান্নাত প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
“নিজে বাঁচি পরিবেশ বাচাঁই
চলো সবাই সবাই গাছ লাগাই”
এই শ্লোগান কে সামনে রেখে এ সংগঠনের উপজেলা পর্যায়ের ৮ম প্রোগ্রাম।
গ্রীণ ব্রাহ্মণবাড়িয়া হচ্ছে অনলাইন ও অফলাইন ভিত্তিক সেবামূলক, অব্যাবসায়িক ফেইসবুকভিত্তিক সংগঠন। যার মাধ্যমে বিনামূল্যে গাছ শেয়ারিং ও কেয়ারিং করে থাকে।

সংগঠনটি সরাইল সরকারি কলেজে ফুলের গাছ রোপনসহ ত্রিশজন শিক্ষার্থীকে বিনামূলে গাছ প্রদান করেছে।

গ্রীন ব্রাহ্মণবাড়িয়া’র আয়োজনে সরাইল সরকারি কলেজ প্রাঙ্গনে বিনামূল্যে গাছ বিতরণ অনুষ্ঠান

themesbazartvsite-01713478536