আজও ১৬৯৬ জন সুস্থ, আশার আলো দেখছে ইতালি

আজও ১৬৯৬ জন সুস্থ, আশার আলো দেখছে ইতালি

ডেস্ক রিপোর্ট:ইতালিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সুস্থতার সংখ্যা বাড়ছে প্রতিদিন। গত একদিনে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ হাজার ৬৯৬ জন করোনা রোগী। দেশটিতে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৬৬ হাজার ৬২৪ জন।

গত কয়েকদিনে রেকর্ড সংখ্যক মানুষ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এতে আশার আলো দেখছে দেশটির ৬ কোটি মানুষ।

সোমবার ( ২৭ এপ্রিল) ইতালিতে ৩৩৩ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ইতালিতে মোট মারা গেছে ২৬ হাজার ৯৭৭ জন।

এদিন ইতালিতে আরও  এক হাজার ৭৩৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর ফলে আক্রান্তের সংখ্যা  ১ লাখ ৯৯ হাজার ৪১৪ জনে পৌঁছেছে।

সোমবার  (২৭ এপ্রিল) নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে নাগরিক সুরক্ষা সংস্থার প্রধান অ্যাঞ্জেলো বোরেল্লি এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

এদিকে করোনা মহামারিতে বিপর্যস্ত ইতালি এবার ৭ সপ্তাহ ধরে জারি থাকা লকডাউন শিথিলের ঘোষণা দিয়েছে। ৪ মে থেকে বিধিনিষেধ শিথিল করা হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী গুইসেপ কন্তে।

গত রবিবার জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া এক ভাষণে ইতালির প্রধান গুইসেপ কন্তে বলেন,  ৭ সপ্তাহ ধরে জারি থাকা লকডাউন শিথিল করা হবে ৪ মে।

৪ মে থেকে লোকজনকে তাদের নিজ অঞ্চলের মধ্যে ঘোরাফেরার অনুমতি দেওয়া হবে, কিন্তু তারা অন্য অঞ্চলে যেতে পারবেন না। শেষকৃত্য আবার শুরু হবে, কিন্তু সর্বোচ্চ ১৫ জন উপস্থিত থাকতে পারবেন এবং উন্মুক্ত স্থানে করতে হবে।

৪ মে থেকে খাবার বিক্রির জন্য বার ও রেস্তোরাঁগুলো খোলা হবে এবং অবশ্যই ক্রেতারা খাবার কিনে বাড়িতে অথবা অফিসে নিয়ে খাবে। পার্কগুলোও খুলে দেওয়া হবে, তবে স্কুলগুলোতে সেপ্টেম্বরের আগে ক্লাস শুরু হবে না। এ নিয়ে আশার আলো দেখছেন ইতালি প্রবাসীরা।

সামনের মাসগুলোতেও সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে চলার ওপর জোর দিয়েছেন কন্তে। গির্জায় উপাসনা বন্ধ থাকবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

ডেস্ক রিপোর্ট:ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলায় করোনাভাইরাস পরীক্ষা এবং লোকজনকে কোয়ারেন্টিনে নিয়ে যাওয়াকে কেন্দ্র করে দাঙ্গায় জড়িয়েছে হিন্দু ও মুসলমান সম্প্রদায়। এ সময় দোকান, বাড়ি ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও বোমাবাজি করা হয়েছে।

বিবিসি বাংলার প্রতিবেদনে বরা হয়, গতকাল মঙ্গলবার দুপুর থেকে নতুন করে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়েছে। এর আগে গত রোববার প্রথম উত্তেজনা তৈরি হয়। তখন পুলিশ বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এখন পর্যন্ত মোট ১১২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

হুগলির তেলেনিপাড়া এলাকায় কয়েকদিন আগে করোনাভাইরাস পরীক্ষার একটি শিবির করা হয়েছিল। পরীক্ষায় বেশ কয়েকজনের করোনা পজিটিভ আসে এবং ঘটনাচক্রে তারা সবাই মুসলমান।

পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির সংসদ সদস্য অর্জুন সিং এ ঘটনার একটি ভিডিও পোস্ট করে লেখেন, ‘ক্যাম্পটা মুসলমান প্রধান এলাকায় হয়েছিল, তাই স্বাভাবিকভাবেই পজিটিভ এলে মুসলমানদেরই হবে। কিন্তু সেটা নিয়ে হিন্দুদের একাংশ মুসলমানদের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ ছড়াতে থাকে। মুসলমানরাই করোনা ছড়াচ্ছে বলে টিটকিরি দেওয়া হয়।’

কেউ যাতে গুজব ছড়িয়ে অশান্তি না বাড়াতে পারে, এ কারণে ওই অঞ্চলে ইন্টারনেট বন্ধ করা হয়েছে।

করোনা নিয়ে ভারতে হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গা, বাড়ি ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও বোমাবাজি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazartvsite-01713478536