মনিরামপুর কুলটিয়া ইউনিয়নে: করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় যুদ্ধে তরুণেরা

মনিরামপুর কুলটিয়া ইউনিয়নে: করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় যুদ্ধে তরুণেরা

নিলয় ধর,যশোর প্রতিনিধি:- সবাই যখন আতঙ্কিত হয়ে নিরাপদ আশ্রয় খুঁজতে এ শহর থেকে ও গ্রামে ছুটতে ব্যস্ত, তখন এক দল তরুণ ব্যস্ত শহর এবং গ্রাম নিরাপদ রাখতে তারাও ছুটছে। তবে আপনার আমার জীবন যাত্রা যেনো নিরাপদ হয়, যেন নিরাপদ থাকে আপনার সহযাত্রী, প্রতিবেশী, পরিবার। করোনা থেকে শহর নগর নিরাপদ রাখতে রাত-দিন ছুটে চলছে তরুণেরা ।
সারা বিশ আজ করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে জর্জরিত। এই ভাইরাসের কোনো প্রতিষেধক আবিষ্কৃত না হওয়ায় স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা সবাইকে ঘরে বা হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরমার্শ জানিয়েছেন। করোনা মোকাবেলায় দেশ গড়ার দীক্ষা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে  এই তরুণেরা।করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে 
স্বেচ্ছাসেবীরা বলছেন, আমরা এখন গণপরিবহন, মসজিদ অথ্যাৎ যেখানে গণজমায়েত সেখানে গিয়ে গিয়ে সচেতন করছি। করোনা সক্রামণ ঠেকাতে আমাদের এ উদ্যোগ বাড়ি বাড়ি গিয়ে বোঝানো।
 
 
মণিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আহসান উল্লাহ শরিফীর আহ্বানে পৌরসভা ও ১৭ ইউনিয়নে টিম ভাগ করে গ্রামে কাজ করছেন স্বেচ্ছাসেবী টিম।এদিকে যখন ব্যস্ত গ্রামটি আতঙ্কে প্রায় স্তব্ধ, তখন দুরন্ত  একদল তরুণ। বাজারে যখন করোনার জীবাণুনাশকের সংকট , তখন তারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ব্যস্ত কীভাবে মানসম্পন্ন হ্যান্ড স্যানিটাইজার মানুষের কাছে পৌঁছানো যায় সে প্রচেষ্টায়।
 
এ তরুণদের কাজে মানুষ আতঙ্কিত না হয়ে সেচ্ছাসেবকের ভূমিকায় নিজের পাশাপাশি পরিবেশ রক্ষায় এগিয়ে আসবে। সেই সঙ্গে চারপাশ নিয়মিত পরিষ্কারের কাজটি করতে হবে সরকারি-বেসরকারি, বাণিজ্যিক, ধর্মীয় ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি ব্যক্তি উদ্যোগেও-এমনই প্রত্যাশা তাদের।
StayHome: করোনা থেকে বাঁচতে বাড়িতে থাকুন।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

বুলবুল আহমেদ নিজস্ব প্রতিনিধি ঃ

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহার পৌর শহরের মালগুদাম এলাকা থেকে সিএনজি সিলিন্ডার ভর্তি ট্রাক জব্দ করেছেন আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী অফিসার। সান্তাহার পৌর শহরের উম্মুক্ত জায়গায় ঝুকিঁপূর্ন ভাবে পাইপের মাধ্যমে গ্যাস কেনাবেচা হচ্ছে এমন অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ বিন রশিদ সোমবার ভোরে সেখানে অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় অবৈধ ভাবে গ্যাস বিক্রির সাথে জড়িত ব্যক্তিরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়।
অবৈধ ভাবে গ্যাস বিক্রি বন্ধের জন্য গত ৫ সেপ্টেম্বর আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন সান্তাহার মালগুদাম এলাকার ব্যবসায়ি ও পরিবহন শ্রমিক সংগঠন। অভিযোগে জানা যায়, সান্তাহার পৌর এলাকার মিজানুর রহমান দীর্ঘ দিন ধরে গভীর রাতে ট্রাকে সিলিন্ডার রেখে বিভিন্ন যানবাহনে অবৈধ ভাবে গ্যাস বিক্রি করে আসছেন। বগুড়ার সিএনজি ষ্টেশন থেকে ট্রাকে করে গ্যাস সিলিন্ডার আনা হয়। একটি ট্রাকে বড় আকারের ২০ থেকে ৩০ টি সিলিন্ডার থাকে। শহর মানুষ শুন্য হলে গভীর রাতে ট্রাকের সিলিন্ডার থেকে পাইপের মাধ্যমে সিএনজি, প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাসসহ অন্যান্য যানবাহনে গ্যাস বিক্রি হয়। দুরত্ব ও খরচ এড়াতে যানবাহনের মালিকরা ট্রাক থেকে গ্যাস সংগ্রহ করে থাকেন। সান্তাহার শহরের ব্যবসায়ি ও পরিবহন শ্রমিক সংগঠনের অভিযোগের ভিত্তিতে আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ বিন রশিদ সোমবার ভোরে অভিযান পরিচালনা করে ১২টি গ্যাস ভর্তি সিলিন্ডার সহ একটি ট্রাক জব্দ করেন। এ ব্যাপারে আদমদীঘি ইউএনও আবদুল্লাহ বিন রশিদ জানান, ট্রাকসহ সিলিন্ডার থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে এবং বিষয়টি বগুড়া পরিবেশ অধিদপ্তরকে অবহিত করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় নিয়মিত মামলা দায়ের করা হবে।

বগুড়ার সান্তাহারে গ্যাস সিলিন্ডার ভর্তি ট্রাক জব্দ করলেন ইউএনও

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ
নীলফামারীর সৈয়দপুরে ট্রলির সাথে মোটর সাইকেলের মুখোমুখী সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে মোটর সাইকেলের চালক নিহত হয়েছে।  তার নাম সুমন মোহাম্মদ তুষার (৩৫)। তিনি দিনাজপুরের পার্বতীপুরের গুলপাড়ার জুলফিকার আলীর পুত্র। পার্বতীপুর স্টেশনে বাংলাদেশ রেলওয়ের সহকারী লোকোমাস্টার (সহকারী ট্রেন চালক) হিসেবে কর্মরত।
পুলিশ জানায়, ১৬ আগস্ট  রোববার রাত আনুমানিক ৮টার দিকে মোটর সাইকেল যোগে সৈয়দপুর থেকে পার্বতীপুরে যাওয়ার সময় সৈয়দপুর উপজেলার সীমানা এলাকার চৌমুহনী বাজারে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রলির সাথে মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে মারা যায় সুমন।
এ সময় মোটরসাইকেলে থাকা বোন ও ভাগিনী গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা আহতদের সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করায়।৷

সৈয়দপুরে ট্রলি-মোটরসাইকেল মুখোমুখী সংঘর্ষে সহকারী লোকো মাস্টার সুমন নিহত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazartvsite-01713478536