যশোরে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে।

যশোরে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে।

মো:আসাদুজ্জামান শাওন,যশোর প্রতিনিধি:যশোরে স্ত্রী খুশি বেগমকে (১৮) শ্বাসরোধে হত্যা করে আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রেখে পালিয়েছে যশোর সদর উপজেলার নওয়াদাগা গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে বিদেশফেরত ফারুক হোসেন।
পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছে।
নিহত খুশিবেগম ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার কামদেবপুর গ্রামের দাউদ হোসেনের মেয়ে।
খুশি বেগমের চাচা জামাল উদ্দিন জানান, সাত মাস আগে বাড়ি থেকে পালিয়ে খুশি বেগম ও ফারুক হোসেন বিয়ে করে। বিয়ের পর ফারুকের আরো দুই স্ত্রী এবং তিন সন্তান আছে জানতে পেরে খুশিবেগম তাকে তালাক দিতে যায়। এসময় স্বামী ফারুক হোসেন খুশির বাবা দাউদ হোসেন, চাচা জামাল হোসেনসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে মিথ্যা ডাকাতি মামলা দেয় এবং পুলিশ দিয়ে নানাভাবে হয়রানি করে। এক পর্যায়ে স্বামীর সংসার করতে থাকে খুশি। এসময় বাবার পরিবার থেকে সকল প্রকার সম্পর্ক ছিহ্ন করতে খুশিকে বাধ্য করা হয়।
আজ বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে খুশি আত্মহত্যা করেছে প্রতিবেশির এমন সংবাদ পেয়ে তার বাবার বাড়ির লোকজন ছুটে আসে। তারা গলায় ফাঁস দেয়া অবস্থায় দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।
স্থানীয়দের উদ্ধৃতি দিয়ে জামাল হোসেন আরো জানান, দুপুরে খুশি বেগমের সাথে তার সতীন শারমিন ঝগড়া বাধায়। ফারুক বাড়ি আসলে শারমিন তাকে নানা কথা শুনিয়ে দিয়ে ঘরের মধ্যে যায়। এসময় ফারুক ও শারমিন দুইজনে মিলে খুশিকে শ্বাসরোধে হত্যা করে আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রেখে পালিয়ে যায়।  প্রতিবেশিরা কিছু সময় পর খুশিকে আড়ার সাথে ঝুলতে দেখে তার বাবার বাড়িতে সংবাদ দেয়।
সংবাদ পেয়ে কোতয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মনিরুজ্জামান ও পুলিশ পরির্দশক (অপারেশন) সেখ তাসনিম আলম ঘটনাস্থল পরির্দশন করেন।
সন্ধ্যার দিকে যশোর সদরের সাজিয়ালি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সুকুমার কুন্ডু লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছেন। সুকুমার কুন্ডু জানান, গলায় ফাঁসের চিহ্ন রয়েছে। তবে মৃত্যুর কারণ জানতে গেলে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।
যশোর সদর উপজেলার কাশিমপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মশিউর রহমান সাগর জানান, নওদাগা গ্রামের ফারুকের স্ত্রী খুশি বেগমের মৃত্যু হয়েছে শুনেছি। তবে কি ভাবে মারা গেছে, ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসলে বোঝা যাবে। তবে, ফারুকের চরিত্র ভাল না ।
যশোর কোতয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মনিরুজ্জামান জানান, কেউ কোন অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ দিলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। স্বামী ফারুক হোসেন, সতীন শারমিনকে পাওয়া যায়নি।

 

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazartvsite-01713478536