নিজেকে সতেজ রাখতে

নিজেকে সতেজ রাখতে

বাইরে বের হলেই ধুলাবালু আপনাকে অস্বস্তিতে ফেলে দেয়। নিজেকে সতেজ রাখার জন্য বাইরে থেকে ফিরে সবার আগে পরিচ্ছন্ন হতে হবে। বিশেষ করে কোনো কিছু খাওয়ার আগে ভালোভাবে হাত ধোয়া যেমন দরকার, একইভাবে নিজের সম্পূর্ণ পরিষ্কার করা জন্য গোসল করা জরুরি।

নিয়মিত গোসল
নিয়মিত গোসল স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ভালো। হোক সেটা ঠান্ডা বা গরম পানিতে। নিয়মিত গোসল করলে একাধিক উপকার পাওয়া যায়। সেই সঙ্গে বেশ কিছু জটিল রোগও দূর হয়। নিয়মিত গোসল করলে মস্তিষ্কের সক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। সেই সঙ্গে স্মৃতিশক্তি এবং বুদ্ধির বিকাশ ঘটে চোখে পড়ার মতো। টানা ৩ সপ্তাহ, দৈনিক ২০-৩০ মিনিট গরম পানিতে গোসল করলে রক্তে শর্করার মাত্রা প্রায় ১৩ শতাংশ কমে যায়। ফলে ডায়াবেটিস রোগ নিয়ন্ত্রণে চলে আসতে সময় লাগে না। প্রতিবার ঠান্ডা পানি মাথায় ঢালার সময় ফুসফুস সংকুচিত হয়ে যায়। এমনটা বারবার হওয়ার কারণে অক্সিজেনের সরবরাহ বেড়ে যায়। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ফুসফুসের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। হালকা গরম পানিতে অথবা ঠান্ডা পানিতে গোসল করলে পেশির চোট সারতে শুরু করে। সেই সঙ্গে তারা পুনরায় চাঙা হয়ে ওঠে। পেশির সচলতা বৃদ্ধির পেছনে গোসলের যে বিশেষ ভূমিকা রয়েছে। হালকা গরম পানিতে গোসল করলে সারা শরীরে রক্তের সরবরাহ বেড়ে যায়। সেই সঙ্গে হৃদ্​যন্ত্রের কর্মক্ষমতা বেড়ে যায়। নিয়মিত উষ্ণ গরম পানিতে গোসল শুরু করলে রক্তচাপও স্বাভাবিক হতে শুরু করে।

হাত ধোয়া
● নিজেকে সুস্থ রাখার জন্য হাত ধোয়া উচিত। বিশেষ করে খাবার তৈরি করার আগে, মাঝখানে এবং পরে হাত ধোয়া উচিত।
● খাওয়ার আগেও হাত ধোয়া উচিত এবং অসুস্থ কারও সেবা করার আগে ও পরে।
● শরীরের কাটাছেঁড়া বা ক্ষতের চিকিৎসা করার আগে ও পরে।
● পায়াখানা–প্রস্রাবের পরে।
● ছোট ছেলে বা মেয়ের ডায়াপার বদলানো বা পায়খানা পরিষ্কারের পরে।
● নাক ঝাড়া, কফ ফেলা বা হাঁচি দেওয়ার পরে। কোনো পশুপাখি বা পশুপাখির খাবার বা পশুর বিষ্ঠা ধরার পরে।
● আবর্জনা ধরার পরে।
● পরিষ্কার রাখার জন্য শুধু হাত ধুলেই হবে না। ভালোভাবে হাত ধুতে হবে। ভালোভাবে হাত ধোয়ার জন্য পরিষ্কার পানিতে হাত ভিজিয়ে হাতে সাবান দিতে হবে। এরপর হাতে হাত ঘষে ফেনা তৈরি করে আঙুলের ফাঁকে, নখের মধ্যে পরিষ্কার করতে হবে। অন্তত ২০ সেকেন্ড ধরে হাত ডলে পরিষ্কার করুন। পরিষ্কার চলমান পানিতে হাত ধোয়া উচিত। এরপর পরিষ্কার তোয়ালে দিয়ে হাত মুছুন অথবা বাতাসে শুকিয়ে নিন। হাত ধোয়ার ফলে ডায়রিয়ার ঝুঁকি প্রায় অর্ধেক কমিয়ে দেয়। হাত ধোয়া বিভিন্ন রোগের সংক্রমণের হাত থেকে আমাদের বাঁচায়। হাত না ধুয়ে খাবার তৈরি বা পরিবেশন করলে হাতে থাকা জীবাণু খুব সহজেই খাবারে প্রবেশ করতে পারে। সেই খাবার খেয়ে মানুষ অসুস্থ হয়ে যেতে পারে। কিছুক্ষণ পর পর হাত ধোয়া ডায়রিয়া, শ্বাসনালির সংক্রমণ, ত্বক ও চোখের সংক্রমণ থেকে বাঁচায়। শিশুদের হাত ধোয়ার অভ্যাস তাদের বিভিন্ন রোগের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে। স্বাভাবিক রোগ প্রতিরোধক্ষমতাকে বাড়াতে সাহায্য করে।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

স্টাফ রিপোর্টার: হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ বড়ই আচার খেয়ে রোজিনা আক্তার (১০) নামে এক স্কুল ছাত্রী নিহত হয়েছে সোমবার বিকালে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাদীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। জানা যায়, সোমবার সকালে রোজিনা আক্তার তার বাড়ির পাশ্ববর্তী একটি দোকান থেকে ৫ টাকা দিয়ে আচার ক্রয় করে প্রাণ করার সাথে সাথে তার বমি হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করলে চিকিৎসাদীন অবস্থায় বিকালে তার মৃত্যু হয় নিহত রোজিনা উপজেলার নিজগাঁও গ্রামে ভাঙ্গারি ব্যবসায়ি দেলোয়ার হুসেনের কন্যা ও স্থানিয় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী

হবিগঞ্জ বড়ই আচার খেয়ে এক স্কুল ছাত্রী নিহত

অনলাইন ডেস্ক:পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অপরাধ নির্মূল ও সমসাময়িক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়ে তিনি বলেন, অপরাধের ধরণ প্রতিনিয়ত পরিবর্তিত হচ্ছে।

গতানুগতিক অপরাধের পাশাপাশি সাইবার ক্রাইম, মানিলন্ডারিং, মানবপাচার ইত্যাদি বৈশ্বিক অপরাধ সংগঠিত হচ্ছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকের মতো অশুভ সামাজিক ব্যাধি। জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশ পুলিশের অব্যাহত সাফল্য শুধু দেশেই নয়, আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে।

রোববার দুপুরে রাজশাহীর সারদায় বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে ৩৬তম বিসিএস ব্যাচের শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপারদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি এ নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, জনগণের মনে পুলিশ সম্পর্কে যেন অমূলক ভীতি না থাকে সেজন্য জনগণের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে। সমাজের নারী, শিশু ও প্রবীণদের প্রতি সংবেদনশীল আচরণ করতে হবে। সমাজ থেকে অপরাধ নির্মূলে জনসম্পৃক্ততার মাধ্যমে জনবান্ধব পুলিশ গঠনে আপনাদের অগ্রপথিকের ভূমিকা পালন করতে হবে। পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় জনগণের মৌলিক অধিকার, মানবাধিকার ও আইনের শাসনকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিতে পুলিশ সদস্যদের প্রতি আহবান জানান তিনি।

সকাল সাড়ে ১০টায় বিশেষ হেলিকপ্টারযোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে পৌঁছান। এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী তাকে স্বাগত জানান। এরপর প্রধানমন্ত্রী মঞ্চে গিয়ে নবীন পুলিশদের সশস্ত্র সালাম গ্রহণ করেন ও খোলা জিপে চড়ে নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের সমাপনী কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন। এরপর প্রশিক্ষণের সময় বিভিন্ন বিষয়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী সহকারী পুলিশ সুপারদের মধ্যে ট্রফি বিতরণ করেন তিনি।

পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

এম এইচ মুন্না নিজস্ব প্রতিবেদক :খানসামা উপজেলায় এসিল্যান্ড (সহকারী কমিশনার ভুমি পদটি প্রায় এক বছরের বেশি সময় ধরে শূন্য রয়েছে। এতে উপজেলার ভুমি মালিকরা চরম ভোগান্তিতে পড়েছে। জানা গেছে খানসামা উপজেলা এসিল্যান্ত সহকারী কমিশনার ভুমি মোঃ সোলায়মান আলী প্রায় এক বছর পুর্বে উপজেলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার পদে পদোন্নতি পেয়ে অন্যত্র বদলি হয়ে চলে যান। এর পর থেকে পদটি শূন্য। এ ক্ষেত্রে ভুমি অফিসের খাজনা খারিজ মিসকেস এগুলো পরিচালনায় বিঘ্ন ঘটছে। গুরুত্বপূর্ণ এ পদটি শূন্য থাকায় সাধারণ মনুষকে হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহমেদ মাহবুবুল ইসলাম এসিল্যান্ড পদে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন।গুরুত্বপূর্ণ দূটি পদে দায়িত্ব পালন করতে তাঁকে বেশ হিমসিম খেতে হয়। খানসামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার  আহমেদ মাহবুবুল ইসলাম এর মাঝেও শততা ও নিষ্ঠার সাথে গুরুত্বপূর্ণ দূটি পদেই দায়িত্ব যথাযথ ভাবে পালন করে যাচ্ছেন।

খানসামায় এসিল্যান্ড নেই এক বছর,ভোগান্তিতে ভুমি মালিকরা

সাতক্ষীরা থেকে :  সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ এবং হাসপাতালে ক্যাসিয়ার পদে চাকরি করেন মোস্তাজুল ইসলাম ৤ তার বাসা কলারোয়া উপজেলায় ৤ এই বছর সরকারি ঔষধ ও অনান্য জিনিসপএ যা আনুমানিক প্রায় কোটি টাকার সম্পদ নয়ছয় করার কারনে তিনি চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত হন ৤ কিন্তু তার কর্মকান্ড থেমে থাকে নি ৤ যথারীতি তিনি তার নির্দিষ্ট স্হানে বসে সকল কার্যক্রম সচল রেখেছেন নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে ৤ যার বাস্তব প্রমান এই সদ্যতোলা ছবিতে কর্মরত অবস্হায় মোস্তাজুল ৤ এই বিষয়ে প্রতিষ্ঠানের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন তিনি প্রতিদিন অফিসে হাজিরা দিতে আসেন কিন্তু তার জায়গায় বসে কর্মকান্ড পরিচালনা করেন না বলে এড়িয়ে যান ৤ নাম প্রকাশ না করার শর্তে অফিসের অনেক স্টাপ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন ৤ ওখানকার এক নার্স প্রশ্ন তোলেন সরকারের আদেশ অমান্য করে রেজুলেশন ছাড়া কিভাবে তিনি কার্যক্রম পরিচালনা করেন এটা তার জানা নাই ৤ এই বিষয়ে স্বাস্হ মন্ত্রির দৃষ্টি আকর্ষনের জন্য বিশেষভাবে অনুৃরোধ করছি ৤

বরখাস্ত হওয়া মোস্তাজুল এখনও কর্মকান্ডে

themesbazartvsite-01713478536