জাতীয় রপ্তানি অবদানে স্বীকৃতি পেল ৬৬ প্রতিষ্ঠান

জাতীয় রপ্তানি অবদানে স্বীকৃতি পেল ৬৬ প্রতিষ্ঠান

অনলাইন ডেস্ক: জাতীয় রপ্তানিতে টানা ষষ্ঠবারের মতো স্বর্ণপদক পেলেন সার্ভিস ইঞ্জিনের চেয়ারম্যান এ এস এম মহিউদ্দিন মোনেমদেশের রপ্তানি বাণিজ্যে অবদান রাখায় ২৮ ক্যাটাগরিতে ৬৬ প্রতিষ্ঠানকে ‘জাতীয় রপ্তানি ট্রফি’ তুলে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে রপ্তানি বাণিজ্যে অবদানের জন্য গতকাল রবিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিনিধিদের হাতে ট্রফি তুলে দেওয়া হয়। ২৯টি স্বর্ণ, ২১টি রৌপ্য এবং ১৬টি ব্রোঞ্জ ট্রফি প্রদান করে দেশের বাণিজ্য যোদ্ধাদের স্বীকৃতি দেওয়া হয়।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি তোফায়েল আহমেদ বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. মফিজুল ইসলাম এবং এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিমও অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন। রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) ভাইস চেয়ারম্যান বেগম ফাতিমা ইসলাম অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন।

যেসব প্রতিষ্ঠান রপ্তানি ট্রফি পেল : তৈরি পোশাক (ওভেন) খাতে স্বর্ণপদক পেয়েছে হা-মীম গ্রুপের প্রতিষ্ঠান রিফাত গার্মেন্ট। একই খাতে ব্রোঞ্জপদকও পায় হা-মীম গ্রুপের দ্যাটস ইট স্পোর্টসওয়্যার। এ খাতে রৌপ্যপদক পেয়েছে এ কে এম নিটওয়্যার।

তৈরি পোশাকের নিটওয়্যার খাতে স্বর্ণপদক পায় স্কয়ার ফ্যাশনস, রৌপ্য ফোর এইচ ফ্যাশনস এবং ডার্ড কম্পোজিট টেক্সটাইলস পায় ব্রোঞ্জপদক। সব ধরনের সুতা রপ্তানি খাতে বাদশা টেক্সটাইলস পায় স্বর্ণপদক। আর কামাল ইয়ার্ন রৌপ্য ও ম্যাকসন স্পিনিং পায় ব্রোঞ্জপদক। টেক্সটাইল ফ্যাব্রিকস খাতে এনভয় টেক্সটাইল স্বর্ণ, ফোর এইচ ডায়িং অ্যান্ড প্রিন্টিং রৌপ্য ও প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে। টেরিটাওয়েল খাতে নোমান টেরিটাওয়েল মিলস স্বর্ণপদক পেয়েছে। এ খাতে আর কোনো পদক দেওয়া হয়নি। হিমায়িত খাদ্য খাতে সি-মার্ক (বিডি) স্বর্ণপদক পেয়েছে। আর ব্রাইট সি ফুডস রৌপ্য ও বিডি সি ফুডস পেয়েছে ব্রোঞ্জপদক।

পাটজাত দ্রব্য খাতে আকিজ জুটমিলস পায় স্বর্ণ, জনতা জুটমিলস রৌপ্য আর করিম জুট স্পিনার্স ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে। ক্রাস্ট বা ফিনিশড চামড়া খাতে এসএএফ ইন্ডাস্ট্রিজ স্বর্ণপদক পেয়েছে। পিকার্ড বাংলাদেশ চামড়াজাত পণ্য রপ্তানি খাতে স্বর্ণ ও বিবিজে লেদার গুডস রৌপ্যপদক পেয়েছে। সব ধরনের পাদুকা রপ্তানি খাতে স্বর্ণপদক পেয়েছে বে ফুটওয়্যার। আর এফবি ফুটওয়্যার রৌপ্য ও ফুডবেড ফুটওয়্যার ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে।

কৃষিপণ্য (তামাক ব্যতীত) রপ্তানি খাতে স্বর্ণপদক পেয়েছে মনসুর জেনারেল ট্রেডিং, রৌপ্য পেয়েছে এলিন ফুডস এবং হেরিটেজ এন্টারপ্রাইজ পেয়েছে ব্রোঞ্জপদক। প্রক্রিয়াজাত কৃষিপণ্য রপ্তানিতে প্রাণ অ্যাগ্রো স্বর্ণপদক পেয়েছে। এলিন ফুড পেয়েছে রৌপ্য আর হবিগঞ্জ অ্যাগ্রো ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে। ফুল ফলিয়েজ খাতে রাজধানী এন্টারপ্রাইজ স্বর্ণপদক পেয়েছে। হস্তশিল্প পণ্য রপ্তানিতে কারুপণ্য রংপুর লিমিটেড স্বর্ণ, বিডি ক্রিয়েশন রৌপ্য ও ক্লাসিক্যাল হ্যান্ডমেড প্রডাক্ট ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে। প্লাস্টিক পণ্য রপ্তানিতে বেঙ্গল প্লাস্টিকস স্বর্ণ, ডিউরেবল প্লাস্টিকস রৌপ্য ও অলপ্লাস্ট ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে। সিরামিক খাতে শাইনপুকুর সিরামিকস পেয়েছে স্বর্ণপদক। হালকা প্রকৌশল পণ্য রপ্তানিতে ইউনিগ্লোরি সাইকেল স্বর্ণপদক পেয়েছে। রংপুর মেটাল রৌপ্য ও মেঘনা রাবার পেয়েছে ব্রোঞ্জপদক। ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিকস পণ্য রপ্তানিতে এনার্জিপ্যাক ইঞ্জিনিয়ারিং স্বর্ণ ও বিআরবি কেবল রৌপ্যপদক পেয়েছে। মেরিন সেফটি সিস্টেম ও বিএসআরএম স্টিল অন্যান্য শিল্পজাত পণ্য খাতে স্বর্ণ ও রৌপ্যপদক পেয়েছে। ফার্মাসিউটিক্যালস পণ্য রপ্তানিতে স্বর্ণপদক পেয়েছে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস। এ খাতে ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস পেয়েছে রৌপ্যপদক। কম্পিউটার সফটওয়্যার রপ্তানিতে সার্ভিস ইঞ্জিন লিমিটেড স্বর্ণপদক পেয়েছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, গত অর্থবছরে ১২ শতাংশ রপ্তানি প্রবৃদ্ধি হয়েছে। ২০২১ সালে ৬০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি লক্ষ্য অর্জনে এটি বাড়াতে হবে। এখন থেকে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি ১৫ শতাংশ অর্জন করতে হবে। এ জন্য প্রধানমন্ত্রী পাট ও পাটজাত পণ্য রপ্তানিতে জোর দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, রপ্তানির এ ধারা অব্যাহত থাকলে ২০২১ সালে রপ্তানি আয় ৬০ বিলিয়ন ডলার অর্জন করা সম্ভব হবে।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

অনলাইন ডেস্ক:পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অপরাধ নির্মূল ও সমসাময়িক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়ে তিনি বলেন, অপরাধের ধরণ প্রতিনিয়ত পরিবর্তিত হচ্ছে।

গতানুগতিক অপরাধের পাশাপাশি সাইবার ক্রাইম, মানিলন্ডারিং, মানবপাচার ইত্যাদি বৈশ্বিক অপরাধ সংগঠিত হচ্ছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকের মতো অশুভ সামাজিক ব্যাধি। জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশ পুলিশের অব্যাহত সাফল্য শুধু দেশেই নয়, আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে।

রোববার দুপুরে রাজশাহীর সারদায় বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে ৩৬তম বিসিএস ব্যাচের শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপারদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি এ নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, জনগণের মনে পুলিশ সম্পর্কে যেন অমূলক ভীতি না থাকে সেজন্য জনগণের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে। সমাজের নারী, শিশু ও প্রবীণদের প্রতি সংবেদনশীল আচরণ করতে হবে। সমাজ থেকে অপরাধ নির্মূলে জনসম্পৃক্ততার মাধ্যমে জনবান্ধব পুলিশ গঠনে আপনাদের অগ্রপথিকের ভূমিকা পালন করতে হবে। পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় জনগণের মৌলিক অধিকার, মানবাধিকার ও আইনের শাসনকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিতে পুলিশ সদস্যদের প্রতি আহবান জানান তিনি।

সকাল সাড়ে ১০টায় বিশেষ হেলিকপ্টারযোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে পৌঁছান। এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী তাকে স্বাগত জানান। এরপর প্রধানমন্ত্রী মঞ্চে গিয়ে নবীন পুলিশদের সশস্ত্র সালাম গ্রহণ করেন ও খোলা জিপে চড়ে নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের সমাপনী কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন। এরপর প্রশিক্ষণের সময় বিভিন্ন বিষয়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী সহকারী পুলিশ সুপারদের মধ্যে ট্রফি বিতরণ করেন তিনি।

পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazartvsite-01713478536