রাইড শেয়ারে যাত্রী নিয়ে প্রাণ হারান মিলন

রাইড শেয়ারে যাত্রী নিয়ে প্রাণ হারান মিলন

অনলাইন ডেস্ক:মাত্র ৫০ টাকা ভাড়ায় নুর উদ্দিন ওরফে সুমন নামের এক যাত্রীকে নিয়ে গুলিস্তান যাচ্ছিলেন রাইড শেয়ারে মোটরসাইকেল চালক মো. মিলন (৩৫)। কিন্তু যাত্রীবেশী এই ব্যক্তি মালিবাগ-মৌচাক উড়ালসড়কে মিলনের মোটরসাইকেল কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন। মোটরসাইকেল ছিনিয়ে নিতে ব্যর্থ হয়ে অ্যান্টি কাটার দিয়ে মিলনের গলায় উপর্যুপরি আঘাত করেন নুর উদ্দিন। এই আঘাতে প্রাণ হারান মিলন। তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় গতকাল রোববার দিবাগত রাত তিনটার দিকে রাজধানীর শাহজাহানপুর এলাকা থেকে এই হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্ত নুর উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। এ সময় নুর উদ্দিনের কাছ থেকে মিলনের ব্যবহৃত একটি স্যামসাং জে-৫ মোবাইল সেট, দুটি হেলমেট এবং ডায়াং ১৫০ সিসি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

 

আজ দুপুর সাড়ে ১২টায় এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) মো. আবদুল বাতেন।

মিন্টো রোডে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এই ব্রিফিংয়ে আবদুল বাতেন বলেন, গত ২৬ আগস্ট রাত তিনটার দিকে পাঠাও চালক মিলন এক যাত্রীকে মালিবাগ চৌধুরীপাড়ায় নামিয়ে দেন। এর পর মালিবাগ-মৌচাক উড়ালসড়কে ওঠার সময় আবুল হোটেলের ঢালে নুর উদ্দিন সিগন্যাল দিয়ে মিলনের মোটরসাইকেলটি থামান। তিনি গুলিস্তান যাবেন বলে ৫০ টাকায় মিলনের সঙ্গে ভাড়া ঠিক করেন। উড়ালসড়কে সবচেয়ে ওপরে পৌঁছালে মিলনকে মোটরসাইকেল থামাতে বলেন নুর উদ্দিন। মোটরসাইকেল থামানোর পর নুর উদ্দিন নিজেই মিলনকে মোটরসাইকেল চালানোর কথা বলেন। এতে রাজি না হওয়ায় মিলনের সঙ্গে নুর উদ্দিনের ধ্বস্তাধ্বস্তি হয়। একপর্যায়ে নুর উদ্দিন অ্যান্টি কাটার দিয়ে মিলনের গলায় উপর্যুপরি আঘাত করে মোটরসাইকেল ও মোবাইল নিয়ে চলে যান। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এসব ঘটনা ডিবিকে বলেছেন নুর উদ্দিন।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

অনলাইন ডেস্ক:পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অপরাধ নির্মূল ও সমসাময়িক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়ে তিনি বলেন, অপরাধের ধরণ প্রতিনিয়ত পরিবর্তিত হচ্ছে।

গতানুগতিক অপরাধের পাশাপাশি সাইবার ক্রাইম, মানিলন্ডারিং, মানবপাচার ইত্যাদি বৈশ্বিক অপরাধ সংগঠিত হচ্ছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকের মতো অশুভ সামাজিক ব্যাধি। জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশ পুলিশের অব্যাহত সাফল্য শুধু দেশেই নয়, আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে।

রোববার দুপুরে রাজশাহীর সারদায় বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে ৩৬তম বিসিএস ব্যাচের শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপারদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি এ নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, জনগণের মনে পুলিশ সম্পর্কে যেন অমূলক ভীতি না থাকে সেজন্য জনগণের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে। সমাজের নারী, শিশু ও প্রবীণদের প্রতি সংবেদনশীল আচরণ করতে হবে। সমাজ থেকে অপরাধ নির্মূলে জনসম্পৃক্ততার মাধ্যমে জনবান্ধব পুলিশ গঠনে আপনাদের অগ্রপথিকের ভূমিকা পালন করতে হবে। পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় জনগণের মৌলিক অধিকার, মানবাধিকার ও আইনের শাসনকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিতে পুলিশ সদস্যদের প্রতি আহবান জানান তিনি।

সকাল সাড়ে ১০টায় বিশেষ হেলিকপ্টারযোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে পৌঁছান। এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী তাকে স্বাগত জানান। এরপর প্রধানমন্ত্রী মঞ্চে গিয়ে নবীন পুলিশদের সশস্ত্র সালাম গ্রহণ করেন ও খোলা জিপে চড়ে নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের সমাপনী কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন। এরপর প্রশিক্ষণের সময় বিভিন্ন বিষয়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী সহকারী পুলিশ সুপারদের মধ্যে ট্রফি বিতরণ করেন তিনি।

পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazartvsite-01713478536