গুম নিয়ে কথা বলার অধিকার নেই বিএনপির: তথ্যমন্ত্রী

গুম নিয়ে কথা বলার অধিকার নেই বিএনপির: তথ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক:পেট্রোল বোমা দিয়ে মানুষ হত্যাকারী বিএনপির গুম নিয়ে কথা বলার অধিকার নেই বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদের উদ্যোগে জাতীয় শোকদিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।  শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এ সভা হয়। হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ অন্য নেতারা গত ১০ বছরে কত মানুষ হারিয়ে গেছে, সে বিষয়ে কথা বলেছেন। অথচ এই বিএনপি দলটি গঠিত হয়েছে রক্তে রঞ্জিত হাত দিয়ে, জিয়াউর রহমানের হাত দিয়ে।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘বিএনপি মহাসচিবের ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব এবং মূল দায়িত্ব পালনকালে অর্থাৎ তার সময়ে সহস্রাধিক মানুষ অগ্নিবোমা এবং সন্ত্রাসের কারণে হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে। আর এই সবকিছুর হুকুমের আসামি হচ্ছেন তারা, যারা বড় বড় কথা বলেছেন।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশে হত্যার রাজনীতি শুরু করেছে জিয়াউর রহমান ও তার দল বিএনপি। জিয়াউর রহমান যখন ক্ষমতায় ছিল, তখন আওয়ামী লীগের বহু নেতাকর্মী গুম হয়েছে, হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে। জিয়া বঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের অন্যতম। ২০০১ থেকে ২০০৬ পর্যন্ত কয়েক হাজার মানুষ হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে। সুতরাং গুম-খুনের মতো বিষয়ে তাদের কথা বলার অধিকার নেই। ‘

তিনি আরও বলেন, ‘যারা শুধু পেট্রোলবোমা নিক্ষেপ করেছে তারা দায়ী নয়, তাদের যারা পরিচালনা করেছে, অর্থায়ন করেছে, বোমা হাতে তুলে দিয়েছে, তারাও দায়ী। একটি বিশেষ ট্রাইব্যুনাল করে এসব ঘটনার বিচার হওয়া দরকার।’

আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন সাবেক খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, আওয়ামী লীগ নেতা সুজিত রায় নন্দী, বলরাম পোদ্দার প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন ব্যারিস্টার জাকির আহমেদ।

সংবাদটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

অনলাইন ডেস্ক:পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অপরাধ নির্মূল ও সমসাময়িক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়ে তিনি বলেন, অপরাধের ধরণ প্রতিনিয়ত পরিবর্তিত হচ্ছে।

গতানুগতিক অপরাধের পাশাপাশি সাইবার ক্রাইম, মানিলন্ডারিং, মানবপাচার ইত্যাদি বৈশ্বিক অপরাধ সংগঠিত হচ্ছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকের মতো অশুভ সামাজিক ব্যাধি। জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশ পুলিশের অব্যাহত সাফল্য শুধু দেশেই নয়, আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে।

রোববার দুপুরে রাজশাহীর সারদায় বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে ৩৬তম বিসিএস ব্যাচের শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপারদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি এ নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, জনগণের মনে পুলিশ সম্পর্কে যেন অমূলক ভীতি না থাকে সেজন্য জনগণের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে। সমাজের নারী, শিশু ও প্রবীণদের প্রতি সংবেদনশীল আচরণ করতে হবে। সমাজ থেকে অপরাধ নির্মূলে জনসম্পৃক্ততার মাধ্যমে জনবান্ধব পুলিশ গঠনে আপনাদের অগ্রপথিকের ভূমিকা পালন করতে হবে। পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় জনগণের মৌলিক অধিকার, মানবাধিকার ও আইনের শাসনকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিতে পুলিশ সদস্যদের প্রতি আহবান জানান তিনি।

সকাল সাড়ে ১০টায় বিশেষ হেলিকপ্টারযোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে পৌঁছান। এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী তাকে স্বাগত জানান। এরপর প্রধানমন্ত্রী মঞ্চে গিয়ে নবীন পুলিশদের সশস্ত্র সালাম গ্রহণ করেন ও খোলা জিপে চড়ে নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের সমাপনী কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন। এরপর প্রশিক্ষণের সময় বিভিন্ন বিষয়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী সহকারী পুলিশ সুপারদের মধ্যে ট্রফি বিতরণ করেন তিনি।

পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazartvsite-01713478536