সিনেমা না থাকলে হল দিয়ে কি হবে: শাকিব

সিনেমা না থাকলে হল দিয়ে কি হবে: শাকিব

বিনোদন
শেয়ার করুন

ঢাকাই চলচ্চিত্রের একমাত্র নির্ভরযোগ্য তারকার নাম। কিংখান খ্যাত এই নায়কের বিকল্প ঢালিউডে এখনো তৈরী হয়নি । নিজ অভিনয় দক্ষতা এবং দর্শকের ভালোবাসায় লম্বা সময় শাসন করছেন বাংলা চলচ্চিত্রের সাম্রাজ্য।

করোনার পর আবার ঢালিউডে নতুন উদ্যমে কাজ শুরু হয়েছে। আর কাজ শুরু হবার পর সিনেমা ও বিজ্ঞাপনের কাজ নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান। সম্প্রতি স্বনামধন্য একটি প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনে শুটিং করেছেন। পাশাপাশি এ প্রতিষ্ঠানের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে এক বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধও হয়েছেন এ অভিনেতা। ইন্ডি রিলস প্রোডাকশন হাউজের ব্যানারে শাকিবের বিজ্ঞাপনটি পরিচালনা করেন সামিউর রহমান।

এছাড়া বর্তমানে শাকিব খান ‘অন্তরাত্মা’ ও ‘লিডার আমিই বাংলাদেশ’ দুটি সিনেমার কাজ শেষ করেছেন। ‘অন্তরাত্মা’ ছবিতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন কলকাতার দর্শনা বণিক। অন্যদিকে ‘লিডার আমিই বাংলাদেশ’ ছবিতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন শবনম বুবলী। এদিকে এ মাসের শেষের দিকে এসএ হক অলিকের সরকারি অনুদানের ‘গলুই’ ছবির শুটিংয়ে অংশ নেবেন এ অভিনেতা।

এদিকে খবরে এসেছে আসন্ন চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সভাপতি পদে লড়বেন শাকিব খান। সিনেপাড়ায় এ খবরটি নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শাকিব খান বলেন, ‘নির্বাচন বিষয়ে যে খবর ছড়িয়েছে, তা সম্পূর্ণ অসত্য। আসলে আমি এখন নির্বাচন নিয়ে কিছু ভাবছি না। সামনে আমার কয়েকটি সিনেমা নিয়ে কথা চলছে। তা ছাড়া সমিতির নির্বাচন নিয়ে আপাতত আগ্রহ নেই।’ তিনি আরও বলেন, মাঝেমধ্যে আমি অবাক হয়ে যাই। কিছু গণমাধ্যম আমার সঙ্গে কথা না বলেই নিউজ করে। কিছু কিছু নিউজ আমাকে বিব্রত করে। জনপ্রিয় অভিনেতা জানান, তিনি দুবার চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি থাকাকালে সমিতির অফিসটি পুনঃসংস্কার করেন এবং সমিতির সামনের বাগানটিও তৈরি করেছিলেন।

শাকিব খান বলেন, আমি সমিতি থেকে ঈদ-ভাতা চালু করেছিলাম। অনেক শিল্পীকে গোপনে সহায়তা করেছি। কারণ প্রতিটি শিল্পীরই সম্মান রয়েছে। এসব বিষয় আমি কখনও প্রকাশ্যে আনতে চাননি শাকিব খান।শাকিব খানের ওই সময়টাতে অসহায় শিল্পীদের কন্যার বিয়ে এমনকি সন্তানকে কলেজে ভর্তির সময়ও সহায়তা করেছেন। নিরবে অনেকের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। শাকিবকে ‘কিং খান’, ‘সম্রাট’, ‘নবাব’, ‘ভাইজান’, ‘সুপারস্টার’ এবং আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমে বাংলাদেশি মেগাস্টার হিসেবেও সম্বোধন করা হয়। শিল্পীদের জন্য তিনি সবসময়ই নিবেদিত প্রাণ।

শাকিব খান আরও যোগ করেন, এখন অসহায় শিল্পীদের ত্রাণ ও কিছু অর্থ দিয়ে সমিতির নেতারা যেভাবে ছবি তুলে প্রকাশ করছেন তাতে শিল্পীদের অসম্মানই করছেন। সিনেপাড়ায় প্রায়ই শুনতে পাই শিল্পী সমিতির সভাপতি পদে শাকিব খানকে আবারও দরকার। এ বিষয়টিকে কীভাবে দেখছেন জানতে চাইলে শাকিব খান বলেন, এখনকার সমিতির নেতাদের কাছ থেকে হয়তো তারা প্রয়োজনমতো সহযোগিতা পাচ্ছেন না। তাই আমার প্রয়োজন বোধ করছেন তারা। আমি পরপর দুবার সমিতির সভাপতি ছিলাম। পরবর্তীতে অনেকেই অনুরোধ করেছিল নির্বাচন করতে, কিন্তু আমি রাজি হইনি। যে পদ আমি স্বেচ্ছায় ছেড়ে দিয়ে এসেছি, সে পদে নির্বাচন করার আগ্রহ নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *